Mobile No :

+880 1709 91 40 00

E-Mail :

info@pmk-bd.org

Location

Zirabo, Ashulia, Dhaka

Yasmeen is a successful entrepreneur.

Yasmeen is a successful entrepreneur.

Category : Microfinance | Sub Category : News Posted on 2021-02-22 09:12:07




একটি কসমেটিকসের দোকান থেকে নিট কম্পোজিটসহ কোটি টাকার মালিক


একজন সফল উদ্যোক্তা ইয়াসমীন।


 


সাধারন মানুষের অসাধারন হয়ে ওঠার পথের বাঁকে থাকে ছোট ছোট অনেক গল্প। যে গল্প বিশ্বাসের, যে গল্প পরিশ্রমের, যে গল্প ধৈর্য্য ধারনের, যে গল্প সাহসীকতার। ঘুরে দাড়ানোর স্বপ্ন নিয়ে শুরু হয় পথচলা। নানা বাধা আসে চলার পথে। ঝুঁকি সামলে নিতে না নিতে আবার ঝুঁকি আসে। পথচলতে গিয়ে থেমে যাওয়া মানে তো সব কিছু শেষ হয়ে যাওয়া নয়। আত্মবিশ্বাসকে পুঁজি করে আবার উঠে দাড়াতে হয়। সাফল্য তাদের কাছেই ধরা দেয় যারা থেমে গিয়েও পথের শেষ দেখতে এগিয়ে যায়। তেমনিই একজন চার চারটি প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ইয়াসমীন ও তাঁর স্বামী জালাল উদ্দিন মেম্বার।


ঢাকা জেলার অদূরে আশুলিয়া উপজেলা টংগাবাড়ি পশ্চিমপাড়া গ্রামের অর্ন্তগত এক নিভৃত গ্রামে তাঁর সহজ সরল বেড়ে ওঠা। তিনি একজন প্রাণচঞ্চল ছিলেন এবং সবসময় হাসিখুশি থাকতে পছন্দ করতেন। তিনি স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসতেন। তাঁর স্বপ্ন ছিল এক রাজকুমারের সাথে বিয়ে হবে এবং সুখের নীড়ে বসবাস করবে। তাঁর বিয়ে হয় ঠিক রাজকুমারের মতোই এক সুদর্শন যুবকের সাথে কিন্তু সংসারে স্বচ্ছলতা ছিল না। অভাব অনটন লেগেই থাকতো। খেয়ে না খেয়ে খুব কস্টে দু’টি সন্তান, স্বামী, শ্বশুর ও শ্বাশুড়ীকে নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করতেন। তাঁর শ্বশুর-শ্বাশুড়ির চিকিৎসা, বস্ত্র ও নিজের পরিধান করার মতো কোন সুযোগ সুবিধা ছিল না। এই পরিস্থিতিতে তাঁরা স্বামী স্ত্রী মিলে অনেক ভেবে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলেন যে বাসার নিকটস্থ আশুলিয়া বাজারে একটি কসমেটিকসের দোকান প্রতিষ্ঠা করবেন। এই উদ্দেশ্যে নিজেদের জমানো কিছু টাকা দিয়ে কসমেটিকসের দোকান শুরু করেন। দোকান শুরু করার পর এলাকার মানুষের কসমেটিকসের পণ্যের চাহিদা দিনকে দিন বৃদ্ধি পেতে থাকে। কিন্তু আর্থিক অস্বচ্ছলতার কারণে দোকানটি বড় করতে পারছিলেন না। এই মুহূর্তে জানতে পারেন জিরাবতে প্রতিষ্ঠিত বে-সরকারী সামাজিক উন্নয়নমূলক ও উদ্যোক্তা সৃষ্টিকারী অর্থপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠান পল্লী মঙ্গল কর্মসূচী (পিএমকে) সহজ শর্তে স্বল্প সার্ভিস চার্জ গ্রহণ করে ঋণ প্রদান করে থাকেন। তাৎক্ষনিক পল্লী মঙ্গল কর্মসূচী (পিএমকে)’র জিরাব-২ শাখার শাখা ব্যবস্থাপকের সাথে যোগাযোগ করেন এবং শাখা ব্যবস্থাপকের পরামর্শ ও সহযোগিতায় টংগাবাড়ি ১০ নং মহিলা সমিতিতে ১০-০১-১৯৯৫ ইং তারিখে ভর্তি হয়ে ২০০০০/- (বিশ হাজার) টাকা ঋণ গ্রহণ করেন। ঋণ গ্রহণকৃত টাকা কসমেটিকসের দোকানের জন্য মালামাল ক্রয় করেন এবং বিক্রি করে লাভবান হতে থাকেন।


 


এভাবেই বেশকিছু বছর অতিবাহিত পর সদস্য ও তাঁর স্বামী উপলব্ধী করতে সক্ষম হন যে উক্ত এলাকায় কাজের প্রয়োজনে প্রচুর বহিরাগত শ্রমিকদের সমাগম হয়ে থাকে। শ্রমিকেরা কাজের প্রয়োজনে এসে খাবারের অভাব অনুভব করেন এবং তারা সদস্য ইয়াসমীন ও তাঁর স্বামীকে খাবারের হোটেল দেয়ার জন্য পরামর্শ প্রদান করে থাকেন। তাদের পরামর্শক্রমে কসমেটিকসের দোকানের পাশাপাশি একটি খাবারের হোটেল দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হলেও তারা টাকার অভাব অনুভব করেন এবং তখনই তাদের পল্লী মঙ্গল কর্মসূচী (পিএমকে)’র কথা মনে পড়ে যায় এবং অর্থপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ করেন এবং ৪র্থ দফায় ৮,০০,০০০/- (আট লক্ষ) টাকা ঋণ গ্রহণ করে তাদের দ্বিতীয় স্বপ্ন পূরণ করেন। যার অবস্থান আজ দোতলা বিল্ডিং-এ পরিণত হয়েছে। বর্তমানে আশুলিয়া বাজার ও অত্র এলাকায় ক্যাফে ঝিনুক হোটেল এন্ড ডিপার্টমেন্টাল স্টোর নামে দুটি প্রতিষ্ঠান সুনামের সহিত ব্যবসা করে যাচ্ছে। ক্যাফে ঝিনুক হোটেল এন্ড ডিপার্টমেন্টাল স্টোর এই দুটি প্রতিষ্ঠানে বর্তমানে  ১৮ থেকে ২০ শ্রমিক নিয়মিত ও নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এবং ইয়াসমীন ও তাঁর স্বামী সফল ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত লাভ করেছেন।


 


 


ক্যাফে ঝিনুক হোটেল এন্ড ডিপার্টমেন্টাল স্টোর-এ বিশ্বাসযোগ্য শ্রমিক থাকায় এবং ব্যবসা দুটি লাভজনক হওয়ায় তাঁরা আবার পরিকল্পনা করতে থাকেন আর কোন ধরনের ব্যবসা করলে লাভবান হওয়া যাবে এবং পাশাপাশি দেশের পুষ্টির যোগান ও কিছু লোকের কর্মসংস্থান করা যাবে সেই চিন্তা করতে থাকেন। এই পরিকল্পনার ফলশ্রুতিতে তাঁরা স্বামী স্ত্রী মিলে ঝিনুক ডেইরী এন্ড ফুড প্রোডাক্টস ও লেয়ার ফার্ম নামে নামকরণ করে বিশাল গরু ও মুরগীর খামার গড়ে তুলেন। এই খামারটি শুরুর দিকে মাত্র ৩টি থেকে ৪টি গরু নিয়ে খামারের যাত্রা শুরু হয়। পরবর্তীতে পল্লী মঙ্গল কর্মসূচী (পিএমকে)’র সহযোগিতায় ৬ষ্ঠ তম দফায় ১২,০০০০০/- (বারো লক্ষ) টাকা ঋণ গ্রহণ করে গরুর পাশাপাশি সম্মিলিতভাবে ডিম উৎপাদনকারী মুরগী ফার্ম তৈরী করেন। গরু ও মুরগী ফার্মের ব্যবসাতেও লাভজনক হতে থাকে। বর্তমানে সমন্বিত খামারে মোট গরুর সংখ্যা ৪১টি এর মধ্যে দুগ্ধজাত ও গর্ভবতী মিলে গাভী রয়েছে ১৮টি। দুগ্ধজাত গাভীগুলো বর্তমানে ৭০ লিটার দুধ দিয়ে থাকে। সমন্বিত খামামে বর্তমানে ৪৫০০ টি ডিম উৎপাদনকারী মুরগী রয়েছে। প্রায় প্রতিটি মুরগি নিয়মিতভাবে ডিম উৎপাদনে সক্ষম। সমন্বিত খামারে মোট ৫ জন লোকের কর্মসংস্থান রয়েছে। এখানেও তাদের উদ্যোগটি সফল হয়েছে এবং ধীরে ধীরে আরও উন্নতি ও সাফল্য বয়ে আনবে বলে আশা ব্যক্ত করেছেন তারা।


 


 


উপরে উল্লেখিত প্রকল্পগুলো সফলভাবে পরিচালিত হওয়ায় তারা আরও আশাবাদী হয়ে ওঠেন। এর ধারাবাহিকতায় তিনি কিছু সেলাই মেশিন নিয়ে স্থানীয় কিছু ছেলে মেয়েদের সেলাই-এর প্রশিক্ষন পরিচালনা করতে থাকেন। আশেপাশে বিভিন্ন নিট ও গার্মেন্টস কারখানাগুলোর লাভজনক ব্যবসা দেখে তিনি নিজে একটি নিট কম্পোজিট কারখানা খোলার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন। তার এই ধারাবাহিক স্বপ্ন পূরণের জন্য আবারও সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয় পল্লী মঙ্গল কর্মসূচী (পিএমকে)। পিএমকে’র সহযোগীতায় সর্বশেষ ৮ম দফায় ১৫,০০০০০/- (পনের লক্ষ) টাকা ঋণ গ্রহন করেন এবং গ্রীণ লাইফ নিট কম্পোজিট লিঃ নামে মাত্র ২০ জন দক্ষ জনবল নিয়ে কারখানাটি চালু করেন। বর্তমানে তিনি দুতলা বিল্ডিং এর দুটি ফ্লোর নিয়ে ১০০ জনের বেশী লোকের কর্মসংস্থানের সৃষ্টি করেছেন। তার প্রতিষ্ঠানে যারা কাজ করছেন তারা বেশ পরিতৃপ্তি নিয়েই কাজ করছেন। কর্মীদের জন্য সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিধা রেখে স্থায়ীকরন পেনশনের ব্যবস্থা রেখেছেন। তাছাড়া সরকার দেশের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে জনহিতকর নানা কাজের সাথে জড়িত তার প্রতিষ্ঠান।


 


আজ তিনি বলেন ছোট্ট একটি কসমেটিকস্ এর দোকান থেকে অনেক কস্টে ও সততা, দক্ষতা, মায়া, মমতা দিয়ে গড়ে তোলা এই চারটি প্রতিষ্ঠানের মালিক তিনি। আল্লাহ্র রহমত ও পল্লী মঙ্গল কর্মসূচী (পিএমকে)’র সহযোগিতায় এতো বড় হতে পেরে গর্বিত। তিনি আজ সফল উদ্যোক্তা হিসেবে আনন্দিত ও গর্বিত।


 


আগামীর উদ্যোক্তাদের জন্য পরামর্শ চাইতে ইয়াসমীন বলতে শুরু করেন, চোখে স্বপ্ন থাকতে হবে। লেগে থাকতে হবে যে কোন কাজে। আর সবচেয়ে বড় যে বিষয়টি তা হচ্ছে জানতে হবে, শিখতে হবে। জানা ছাড়া, শেখা ছাড়া কোন কিছুই ভাল ভাবে করা সম্ভব নয়। আর মানুষকে অন্ধ বিশ্বাসও করা যাবে না। যাকে বিশ্বাস করে দায়-দায়িত্ব দিতে হবে তার সম্পর্কে ভালভাবে খোঁজখবর করতে হবে। পরিশ্রম করতে হবে কৌশলী হয়ে। বুদ্ধিমানের মত খাটতে হবে। সততার সাথে বিপদ মোকাবেলা করতে হবে। আল্লাহর কাছে সবসময় আশ্রয় প্রার্থনা করতে হবে। সফলতার জন্য ধৈর্য্য ধরতে হবে। এবং হাসিমুখে সবসময় ভাল ব্যবহার করতে হবে।


CONTACT

PMK Head Office

Palli Mongal Karmosuchi (PMK)

Zirabo, Ashulia, Dhaka

+88 01709 91 40 00

+88 01877 70 40 00

info@pmk-bd.org

PMK Dhaka Office

Palli Mongal Karmosuchi (PMK)

Floor # 2/A & B, House # 123, Road # 13/A, Dhanmondi, Dhaka.

+88 0877 70 30 00

info@pmk-bd.org